জীবনের পাথেয়

মরন যখন বরন হবে জীবন যাত্রার অস্তাচলে অন্তিম যাত্রার প্রাক্কালে আজরাইল যখন দৃষ্টি দিবে কলবেতে ঝড় উঠিবে... নিস্পলক দৃষ্টি দিয়ে অব্যক্ত কষ্ট নিয়ে পরকালের পাথেয়...


আদিম সাপ

তোমার দাস শরৎ কাশফুল বৈশাখ ভোর হেমন্ত হেরম দুপুর, শুধু ঘরদোর এতো টান কেন শরীরে তার এতো কেন মরবার স্বাদ কাছে এলে হিম হিম শীত...


ঋতুসংহার

স্বপ্নতোরণ রমাদি আজ ছুটি নিয়েছে। পাশের বাড়ির মেয়েটিও আর হারমোনিয়ামে গলা সাধে না আমরা সবাই যে যার ভুলগুলো নিয়ে ব্যস্ত আমাদের কোনো চেনাজানা গাছ নেই...


ঘাসফড়িঙের পা

তোমার ঘুমন্ত অবয়বে চাহিদা জেনেও না জানার ভান তোমার মাঝে মাঝে ছুঁয়ে দিয়ে যাও সালতামামি অদল বদল হয় বর্ষা এই এলো বলে তারপর শরৎ, শিউলীর...


পলিটিক্যাল চাঁদ

একটি রাষ্ট্রের প্রস্তাবনা পৃথিবীতে বাসযোগ্য কোনো রাষ্ট্র নেই; কেন নেই আমি জানি না। অথবা, না জানার ভান করে বসে থাকি বসে থাকি অনাহারে, অর্ধাহারে নতুবা...


ঘন কুয়াশায় এক‌দিন

সম্প‌র্কের টান উজান গা‌ঙে এসে এ কোন টান দি‌লে ভা‌টির নাগর জলজ কণ্ঠ শু‌নে চোখ তু‌লে ঘামভেজা উদোম শরীর স্রো‌তের উজা‌নে বু‌ঝি ফস‌কে গে‌লো মির্তৃঙ্গার...


মেঘের ওপারে যার বাড়ি

কথার কথা অনেক কথা বলার বাকি, শুনবে না কেউ? নাইবা শুনুক- বিলিয়ে যাবো স্রষ্টা শূন্যে, রোদ শিশিরে, শ্যাওলা জলে, দূরের মেঘে উড়িয়ে দেবো ভাসিয়ে দেবো...


একটি হাতুড়ির জন্য প্রার্থনা

নুর হোসেনের জন্য প্রার্থনা (বাস্তব ঘটনা অবলম্বনে) এখনও কি তোমার লাল ঘুড়িটা পরন্ত বিকেলের রক্তিম আকাশে মুক্ত বিহঙ্গের মতো উড়ে বেড়ায়! এখনও কি তুমি নাটাই...


তারেক রেজার পাঁচটি কবিতা

১. তোমার ছবির মতো ফেসবুকে আমার কবিতা ভাবছি ঝুলিয়ে দেব—তাহলেই তৃষাতুর চোখ অবিচল শব্দ থেকে জ্বেলে নেবে কিছুটা আলোক সেলফি মুডের এই মাতলামি আদতেই চিতা...


ফিরে যাই মাটির কাছে

সম্প্রীতির উর্বর ভূমি প্রতিদিন ওরা ছয়জন মুখশধারী এসে নিয়ে যায় তাকে ধোলাই খালে মগজ ধোলাই করে পূর্ণতার পুঁথি পাঠ করে, আলখেল্লা পড়িয়ে অনন্ত সুখের লাগাম...