ইদরিস আলী মধু পাবনা জেলার সাঁথিয়া উপজেলার পনিসাইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পারিবারিক ও গ্রাম্য সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলের মধ্য দিয়ে বড়ো হয়ে ওঠেন। সে কারণে ছোটবেলা থেকেই তিনি সাংস্কৃতিমনা। লেখালেখিতে আত্মনিয়োগ করাও সেকারণেই। ছাত্রজীবন থেকে লেখালেখি শুরু হলেও পত্র-পত্রিকায় তাঁর লেখা প্রকাশ পায় নব্বই দশক থেকে। কবিতার পাশাপাশি ছোটগল্প, উপন্যাস, ছড়া ও গ্রন্থ-আলোচনা লিখে থাকেন। তিনি পেশায় অডিট এন্ড একাউন্টস বিভাগের একজন কর্মকর্তা। প্রকাশিত গ্রন্থ, উপন্যাস- আলো-আঁধারি (২০১২), ছড়াগ্রন্থ- ফুলপরি পাখী ও খুকুমণি (২০১৪)।

ইদরিস আলী মধু এর লেখা:

পতঙ্গবিলাস

সমীকরণ যা হবার তা হয় না মানুষ শুধু দাঁড়িয়ে থাকে মানুষ শুধু দেখে গড়ানো জল পথের মোড়ে কাদের গোল কারা চায় অধিকার চাপাতা ছিঁড়তে চায়...

বেগুনি শাড়ির সাথে মেঘের সখ্যতা

নীরবতা নীরবতা পাহাড় পাথর থেকে কখনো ঘরে এসে দুঠোঁট নাড়ে যেন ছায়ামানুষ সে। ছায়ামানুষ কি মানুষের মতো? তবে কেন তার জন্য অনুভূতিতে বেদনার ঝড়ের সংকেত...

একটি নিধার্য হত্যেকাণ্ড

অতীত স্মৃতি মানুষের মন থেকে একবারে মুছে যায় না। মনের এক কোণে আবছা আলোর নির্জনতায় ঘুমিয়ে থাকে। দুঃখ বা বেদনার মতো তেমন কোনো স্মৃতি জাগানিয়া...

মৌলির জন্য লাল গোলাপ

প্রতিকথা’র এবারের আয়োজন কবিদের গল্প। ভিন্ন ভিন্ন সময়ের ১০ জন কবি তাঁদের কবিতার জগৎ থেকে বেরিয়ে এসে লিখেছেন গল্প। অনেকের ধারনা কবিরা বোধ হয় গল্প...

পেটের ক্ষুধা হয়েছে গাঙচিল

মিথোশক্রিয়া তোমার আঁচল ঝলমল করে রোদের ঝলকে ময়ূর পঙ্খির পালক আঁকা লতায়-পাতায় আঁকা-বাঁকা তোমার আঁচল যে। তোমার শাড়ি বুনন হইছে রঙের সুতাতে ঘাসের রঙে মেঘের...